সিলেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তিন মিনিটের থিসিস

সিলেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তিন মিনিটের থিসিস প্রতিযোগিতা, ছোট ধারণা থেকে বড় ধারণা

আসে। তাদের উদ্ভাবনী ধারণা উপস্থাপনের মাধ্যমে তরুণরা তাদের দক্ষতা উপস্থাপনের সুযোগ পেয়েছে।

এটা নতুন প্রজন্মের জন্য দেশে-বিদেশে ভালো কিছু করার সুযোগ।মঙ্গলবার সিলেটের প্রথম বেসরকারি

বিশ্ববিদ্যালয় ইলেকট্রনিক্স ক্লাব অব লিডিং ইউনিভার্সিটি আয়োজিত তিন মিনিটের থিসিস প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী

অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়,

লিডিং ইউনিভার্সিটি, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি এবং নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ-এর প্রায় ১০০

শিক্ষার্থী ৩৬টি গ্রুপে বিভক্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে।প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন বাংলাদেশ

প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ড. আরিফ আহমেদ।

আরও নতুন নিউস পেতে আমাদের সাইট:allresult.xyz

সিলেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তিন মিনিটের থিসিস প্রতিযোগিতা

প্রতিযোগিতা শেষে বিকাল ৪টায় শুরু হয় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান সৈয়দ রাগীব আলী। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কাজী আজিজুল মাওলা।প্রধান অতিথির বক্তব্যে সৈয়দ রাগীব আলী বলেন, এ ধরনের অনুষ্ঠান শিক্ষার্থীদের ধারণা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এ ধরনের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে শিক্ষার্থীরা তাদের মেধা ও সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটাতে পারে। তাই শিক্ষার্থীদের দক্ষতা তৈরিতে এ ধরনের প্রতিযোগিতা নিয়মিত হওয়া উচিত।প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফা। প্রথম রানার আপ হয়েছেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী তাসনিম জান্নাত চৌধুরী।প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ড. আরিফ আহমেদ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইলেকট্রনিক্স

ক্লাবের উপদেষ্টা গোলাম মাহমুফ চৌধুরী।প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফা। প্রথম রানার আপ হয়েছেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী তাসনিম জান্নাত চৌধুরী। দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন যথাক্রমে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মেহজাবিন তাবাসসুম ও মাহবুব আলম ইমন। প্রতিযোগিতায় সেরা উপস্থাপক নির্বাচিত হন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শাহরিয়ার আহমেদ খান।পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে নেতৃস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মাইমুল আহসান খান, রেজিস্ট্রার মেজর (অব.) মোঃ শাহ আলম, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোস্তাক আহমদ দ্বীন, ইইই বিভাগের প্রধান ড. কামরুজ্জামান, সহকারী অধ্যাপক মো. রফিকুল ইসলাম, ইলেকট্রনিক্স ক্লাবের সহ-উপদেষ্টা নাফিস সুবহানী উপস্থিত ছিলেন।অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে পরিচালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তিথিমনি দাস, রাবিকা হক, ফুহাদ আহমেদ লস্কর, ফারজানা ইয়াসমিন, ফাইজা রাজ্জাক প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যক্ষ সাহেনা আক্তার

জামায়াতপন্থী শিক্ষকদের তুষ্ট করেছেন বলেও অভিযোগ করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, জামায়াতপন্থী শিক্ষকদের একাডেমিক কাউন্সিলে বসিয়েছেন অধ্যক্ষ। ছাত্রলীগ নেতাদের বহিষ্কারের পক্ষপাতদুষ্ট সিদ্ধান্তের মাধ্যমে জামায়াতের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করেছেন অধ্যক্ষ।সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, শুধু মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে ছাত্রলীগের একাংশের ২৩ সদস্যকে কোনো প্রমাণ ছাড়াই বহিষ্কার করা হয়েছে। অন্যদিকে ভিডিও ফুটেজ ও বক্তব্যে নাম থাকলেও ছাত্রলীগের অন্য অংশের মাত্র আট সদস্যকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এই পক্ষপাতমূলক আচরণের জন্য তারা অধ্যক্ষের পদত্যাগ দাবি করছেন।সংবাদ সম্মেলনে অবিলম্বে ২৩ জনের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। না হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি। এ ছাড়া আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দলটি।সংবাদ সম্মেলনে ইচিপ নেতা খোরশেদুল ইসলাম, ডা. সাকি, প্রণব দেবনাথ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *