সাবেক এমপি বদি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের এলাকা ছেড়ে যেতে বলেন

সাবেক এমপি বদি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের এলাকা ছেড়ে যেতে বলেন, অবশেষে টেকনাফের ইয়াবা ব্যবসায়ীদের

এলাকা ছাড়তে বললেন কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি।

তবে ‘ইয়াবা সমর্থক’ হিসেবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তৈরি ইয়াবা তালিকায় তার নাম রয়েছে।স্বরাষ্ট্র

মন্ত্রণালয়ের তালিকায় তার (বদির) ছোট ভাইসহ পরিবারের ঘনিষ্ঠ ২৬ জনের নাম রয়েছে। ইয়াবাসহ অন্তত

আটজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আত্মসমর্পণ করে জামিনে মুক্ত হয়ে দেড় বছর ধরে এলাকায় রয়েছে।

এরপরও ইয়াবা পাচার বন্ধ হয়নি। টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল বাশার প্রথম

আলো ডটকমকে বলেন, সাবেক সংসদ সদস্য উঠে দাঁড়িয়ে ইয়াবাবিরোধী বা ইয়াবা ব্যবসায়ীদের

এলাকা ছেড়ে চলে যেতে বলেন, তার (বদির) আশেপাশের লোকজন এই ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। নির্বাচন নিয়ে

ভোটারদের বিভ্রান্ত করতেই বদির ঘোষণা বলে দাবি করেন আওয়ামী লীগ নেতা।

আরও নতুন নিউস পেতে আমাদের সাইট:allresult.xyz

সাবেক এমপি বদি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের এলাকা ছেড়ে যেতে বলেন

মঙ্গলবার রাতে টেকনাফ পৌরসভার ২, ৬ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ ইসলামের সমর্থনে পৃথক তিনটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।সমাবেশে উপস্থিত নারী-পুরুষদের এলাকা ছাড়ার হুমকি দিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য বদি বলেন, পৌরসভা নির্বাচনের আগে কোনো ইয়াবা ব্যবসায়ীকে রাস্তায় পাওয়া গেলে খবর আছে। নৌকার বিরুদ্ধে কাউকে মাঠে পাওয়া গেলে কিছুই করার থাকবে না। এ ব্যাপারে উপস্থিত অভিভাবকদের সতর্কও করেন বদি। সমাবেশ থেকে বদির বক্তব্য ফেসবুকে লাইভ করা হয়। চতুর্থ দফায় এই পৌরসভার ভোট নেওয়া হবে ২৬ ডিসেম্বর। পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ১৬,০৬৫ জন।দলীয় সূত্রে জানা গেছে, টেকনাফ পৌরসভার মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নের জন্য চারজনের নামের তালিকা কেন্দ্রে পাঠিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ।তাদের মধ্যে ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল বাশার ও টেকনাফ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাবেদ ইকবাল চৌধুরী।

তবে তৃতীয়বারের মতো মনোনয়ন পেয়েছেন

মোহাম্মদ ইসলাম। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলা, ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের মদদদাতা, মানুষ মারধরসহ নানা অপকর্মে জড়িত থাকায় গত সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাননি বদি। তবে দলের মনোনয়ন পেয়েছেন বদির স্ত্রী শাহীন আক্তার। চাচা মোহাম্মদ ইসলামকে বিজয়ী করতে ইতিমধ্যেই মাঠে নেমেছেন বদি।মঙ্গলবার রাতে পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে এক নির্বাচনী জনসভায় সাবেক সংসদ সদস্য বদি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আঞ্চলিক ভাষায় সতর্ক করে বলেন, এখানে যারা নতুন ইয়াবা ব্যবসায়ী তারা পণ্য (ইয়াবা) তুলে নিয়ে যান। তারা আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য নির্বাচনে যায়। তোরা আল্লাহর ওয়াস্তে এলাকা ত্যাগ করেন। ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ইয়াবা সিন্ডিকেট জাহাজ ডুবির ষড়যন্ত্র করছে। এই নৌকা ইয়ান বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা। ইয়ান বিশ্বাস হাজী মোহাম্মদ ইসলামকে দেন। যেহেতু হাজী ইসলাম সাহেব ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তালিকা দেননি, তাই ভোট পাওয়ার চিন্তা করবেন না।

সাবেক এই সাংসদ নির্বাচনী জনসভায়

আরও বলেন, যারা ইয়াবা ব্যবসা করছেন, সুন্দর মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ঘরে নিশ্চিন্তে ঘুমাচ্ছেন, তারা দয়া করে ভোট দিয়ে এলাকায় আসুন। ভোটের আগে রাস্তায় দেখা গেলে, ভোটের সময় পৌরসভার ভেতরে রাস্তায় নৌকার বিরুদ্ধে কাউকে পাওয়া গেলে আমাকে দোষ দেওয়া যাবে না। তোমরা কেউ শান্তিতে থাকতে পারবে না। ‘উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল বাশার বলেন, সাবেক সংসদ সদস্য একজন বিতর্কিত ব্যক্তি। মঙ্গলবার রাতে নির্বাচনী জনসভায় যারা তার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে ইয়াবার বিরুদ্ধে কথা বলছে তাদের এদিক ওদিক দেখে তার বক্তব্য দেওয়া উচিত ছিল। এখন তিনি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের দেশ ছেড়ে চলে যেতে বলছেন।তার ১৩ বছরের ক্ষমতায় তিনি ইয়াবা ব্যবসায়ীদের দেশ ছেড়ে যাওয়ার কথা বলেননি। সে (বদি) এরপর থেকে ইয়াবার বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকলে টেকনাফের মানুষ কুখ্যাতির ভাগীদার হতো না। ক্রসফায়ারে শত শত মানুষ মারা যেত না। এখন ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তার সুবিধার্থে এলাকা ছাড়তে বলছে।

 

About admin

Check Also

নৌকার প্রার্থীরা চ্যালেঞ্জের মুখে

নৌকার প্রার্থীরা চ্যালেঞ্জের মুখে

নৌকার প্রার্থীরা চ্যালেঞ্জের মুখে, মাগুরার মোহাম্মদপুর ও শালিখা উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *