ঢাবির ঘ ইউনিট বাতিল বা সংস্কার করা হবে

ঢাবির ঘ ইউনিট বাতিল বা সংস্কার করা হবে, ‘পরীক্ষার বোঝা’ কমানোর যুক্তি দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের

ভর্তি পরীক্ষার সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডি ইউনিট বাদ দিয়ে বিভাগ পরিবর্তনের আরেকটি ‘কৌশল’ প্রণয়ন

করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান। তবে ডি ইউনিট

বাতিলের সিদ্ধান্তে দ্বিমত পোষণ করেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন ও ইউনিটের

ভর্তি পরীক্ষার প্রধান সমন্বয়কারী সাদেকা হালিম।আবদুল মতিন চৌধুরী বুধবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক

ভবনে ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল

ঘোষণাকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য অধ্যাপক ড. চ্যান্সেলর আরেকটি ‘কৌশলের’ কথা বলেছেন।

এ সময় সাদেকা হালিম উপস্থিত থাকলেও ডি ইউনিট নিয়ে উপাচার্যের বক্তব্যের বিষয়ে তিনি কিছু বলেননি।

আরও নতুন নিউস পেতে আমাদের সাইট:allresult.xyz

ঢাবির ঘ ইউনিট বাতিল বা সংস্কার করা হবে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ইউনিটের পরীক্ষা বাতিল হতে পারে বলে গত বছর থেকেই আলোচনা চলছিল। ডি ইউনিট হবে কিনা জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, “আমাদের একাডেমিক কাউন্সিল এবং সাধারণ ভর্তি কমিটির সিদ্ধান্ত আছে। এভাবেই এক শাখার শিক্ষার্থীরা একই সময়ে অন্য শাখায় যেতে পারবে। অনলাইনে ভর্তি কমিটিকে বিষয়টি বিবেচনা করে একটি কৌশল নিয়ে আসতে ইতিমধ্যেই পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বলে জানান ডিন।পরীক্ষার সংখ্যা যত কমিয়ে বিষয়কে নিয়মের মধ্যে আনব ততই ভোগান্তি কম হবে।সিদ্ধান্ত হয়েছে, তাই এখন কৌশল নেওয়া হয়েছে। সিদ্ধান্ত হবে. ‘উপাচার্য বলেন, ‘বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা কীভাবে কলা, সামাজিক বিজ্ঞান এবং ব্যবসায় শিক্ষায় প্রবেশ করতে পারে তা আমাদের বের করতে হবে। একই সঙ্গে একজন কলার শিক্ষার্থী কীভাবে ব্যবসায় শিক্ষায় যেতে পারে বা ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থী কীভাবে শিল্পে আসতে পারে।

সবাই নয় কিন্তু সর্বত্র শুধুমাত্র

বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা কলা, সামাজিক বিজ্ঞান এবং ব্যবসায় পড়তে আসতে পারে। ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীরা কেবল কলা ও সামাজিক বিজ্ঞানে আসতে পারে। কলার শিক্ষার্থীরা কেবল ব্যবসায় শিক্ষায় যেতে পারে। এর জন্য আমাদের একটি নীতি ও কৌশল নিয়ে আসতে হবে, তাহলে আমরা একটি পরীক্ষার বোঝা কমাতে পারব। পাঁচ থেকে আমরা চারটি ইউনিটে যেতে পারি। সেই সিদ্ধান্ত হয়েছে, এবং এখন একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বিষয়টি অনুমোদন করা হয়েছে, আমরা তা বাস্তবায়ন করব। “ডি ইউনিটে উপাচার্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন সাদেকা হালিম প্রথম আলোকে বলেন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে ১৬টি বিভাগে ৩০০ শিক্ষক রয়েছেন। মাননীয় উপাচার্য মহোদয়, আপনি যদি এটি করতে চান তবে সবার সাথে আলোচনা করেই করুন। এটাই আমি আশা করছি।

তিনি আরো বলেন যারা এখন

মেধা নিয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তাদের অনেকেই অনুষদের প্রাক্তন ছাত্র। তাদের অনেকেই এখন ডি ইউনিটের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে শিক্ষকতা করছেন।এবারই প্রথম ঢাকা ছাড়াও দেশের আরও সাতটি বিভাগীয় শহরের প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখন থেকে এভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, করোনার কারণে বিভাগীয় শহরে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়নি। অভিভাবক ও পরীক্ষার্থীদের দুর্ভোগ লাঘব এবং অর্থ ও সময় বাঁচাতে এটি করা হয়।আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল ডি ইউনিটের মাধ্যমে প্রকাশের পর্ব শেষ হয়েছে। উপাচার্য বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি ‘ড্যামেজ রিকভারি প্ল্যান’ নতুন শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রযোজ্য হবে। তিনি বলেন, ফলাফল শেষ। ভর্তি প্রক্রিয়া যত দ্রুত সম্পন্ন করা যাবে, তত দ্রুত ক্লাস কার্যক্রম শুরু করা যাবে।

 

About admin

Check Also

নির্বাহী প্রকৌশলী অধস্তন প্রকৌশলীকে গলা টিপে ধরে

নির্বাহী প্রকৌশলী অধস্তন প্রকৌশলীকে গলা টিপে ধরে

নির্বাহী প্রকৌশলী অধস্তন প্রকৌশলীকে গলা টিপে ধরে, রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল আহাদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *